রূপা হত্যার রায় ১২ ফেব্রুয়ারি

33
0
SHARE

টাঙ্গাইলে কলজেছাত্রী জাকয়িা সুলতানা রূপাকে চলন্ত বাসে র্ধষণরে পর হত্যার মামলায় পাঁচ আসামরি রায় জানা যাবে ১২ ফব্রেুয়ারি
দুই পক্ষরে যুক্তিতর্ক শুনানি শেষে সোমবার টাঙ্গাইল নারী ও শশিু নর্যিাতন দমন ট্রাইব্যুনালরে বিচারিক অতরিক্তি জলো ও দায়রা জজ আবুল মনসুর মিয়া রায়রে এ দনি ঠকি করে দনে।

গত বছররে ২৫ অগাস্ট রাতে টাঙ্গাইল-ময়মনসিংহ সড়করে পাশে মধুপুর উপজলোর পঁচিশ মাইল এলাকায় রূপার লাশ পাওয়া যায়।

ঢাকার আইডয়িাল ল কলজেরে ছাত্রী রূপা একটি প্রতিষ্ঠানের বিপণণ বিভাগে কর্মরত ছিলেন। তার গ্রামরে বাড়ি সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজলোয়। ওই দনি বগুড়ায় একটি পরীক্ষা দিয়ে বাসে র্কমস্থল ময়মনসিংহে  যাওয়ার পথে ধর্ষণ ও হত্যার শিকার হয় তিনি। পরে অজ্ঞাতদের বিরুদ্ধে একটি মামলা করে মধুপুর থানা পুলিশ।

গত ১৫ অক্টোবর পাঁচ পরবিহন শ্রমকিকে আসামি করে রূপা হত্যা মামলার অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ।
টাঙ্গাইল আদালত পুলিশের পরিদর্শক আনোয়ারুল ইসলাম বলেন,  চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারি টাঙ্গাইল নারী ও শশিু নির্যাতন  দমন ট্রাইব্যুনালরে বিচারক  আবুল মনসুর মিয়া এ মামলার বিচারিক র্কাযক্রম শুরু করনে। পরে অন্যান্য প্রক্রিয়া হয়।

“সোমবার এ মামলার যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ হয়। এরপর বিচারক ১২ ফেব্রুয়ারি রায় ঘোষণা দিন ঠিক করেন।

রূপা যে বাসে আসছিলেন সেই ছোঁয়া পরিবহনের চালক, সুপারভাইজারসহ পাঁচজন গ্রেপ্তারের পর রূপাকে ধর্ষণের পর হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন।

পাঁচ আসামিরা হলেন, ছোঁয়া পরিবহনের চালক  হাবিবুর ও সুপারভাইজার সফর আলী এবং হেলপার শামীম, আকরাম ও জাহাঙ্গীর। এরা সবাই র্বতমানে কারাগারে রয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here